কীভাবে খুলতে পারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

করোনার কারণে বন্ধ থাকা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার বিষয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ‘স্কুলগুলোর ক্লাস কখন শুরু কবে তা পুরোপুরি করোনা পরিস্থিতির ওপর নির্ভর করছে। এখন আশঙ্কা করা হচ্ছে শীতের সময় করোনা বাড়বে। শীত বেশি থাকে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে জানুয়ারির মাঝামাঝি পর্যন্ত। তাই তীব্র শীতের সময়টা পার হয়ে গেলে তারপর আমরা খুলতে পারবো। সেটিও নির্ভর করবে করোনা পরিস্থিতির ওপর, আগাম বলার সুযোগ নেই। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুললে কীভাবে ক্লাস করা, পরিচালনা করা হতে পারে সে বিষয়েও কথা বলেন

দুই হাত ছাড়াই বিশ্ববিদ্যালয়ের গন্ডি পেরিয়ে অফিসার

তখন সবে দ্বিতীয় শ্রেণির ছাত্রী তিনি। আর দশটি শিশুর মতোই হেসে-খেলে বেড়ে উঠছিলেন। তবে হঠাৎই নেমে আসে মস্ত বড় একটা বিপদ। সময়টা ২০০২ সাল। পাশের বাড়ির ছাদে বন্ধুদের সঙ্গে খেলার সময় বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে তার হাতের কনুই পর্যন্ত পুড়ে যায়। আর্তচিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা উদ্ধার করে তাকে নিয়ে যায় হাসপাতালে।দেশের চিকিৎসায় ভালো না হওয়ায় একসময় কলকাতায় নেয়া হয় তাকে। প্রথমে তো কোনো বেসরকারি হাসপাতালও ভর্তি নিতে চায়নি। পরে অনেক কষ্টে কলকাতা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করানো

অফিসে ফেরা হলো না মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার

শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষা গ্রহণ শেষে অফিসে ফেরার পথে মোটরসাইকেল থেকে পড়ে গিয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন জামালপুর সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আফরোজা বেগম (৫৩)। বুধবার বিকেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পরে সন্ধ্যা ৭টার দিকে জামালপুর সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। নিহত আফরোজা বেগম ঢাকার খিলগাঁওয়ের ব্যবসায়ী মজিবর রহমানের স্ত্রী। তিনি জামালপুর শহরের মুকুন্দ বাড়ি এলাকায় ভাড়া বাসায় বসবাস করতেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৩ বছর। দুই সন্তানের জননী আফরোজা বেগম ২০১৫ সালে জামালপুরে যোগদান করেন।

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা নিয়ে আজকে যা জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি বলেছেন, ক্লাস খোলার মতো অবস্থা হলেই খুলবো। একইসঙ্গে অনলাইনে ক্লাসও চলবে। তবে স্বাস্থ্য ঝুঁকির বিষয়টি মাথায় রেখেই এ চিন্তাভাবনা করা হচ্ছে। বুধবার (২৫ নভেম্বর) এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ তথ্য জানান।মন্ত্রী জানান, পহেলা জানুয়ারি বই বিতরণ করা হবে। আর ১৫ জানুয়ারির মধ্যে ভর্তি প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যাবে বলে আমরা আশা করছি। উল্লেখ্য, করোনার কারণে গত ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। গত ১ এপ্রিল এইচএসসি পরীক্ষা শুরুর

মাত্র পাওয়াঃ সরকারি-বেসরকারি স্কুলে ভর্তি নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে একি বললেন শিক্ষামন্ত্রী!

নভেল করোনা ভাইরাস মহামারির কারণে চলতি বছর প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষা বাতিল করে লটারির মাধ্যমে শিক্ষার্থী ভর্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বুধবার (২৫ নভেম্বর) দুপুরে সরকার-বেসরকারি মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুলে ভর্তির বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘ক্লাস্টারভিত্তিক ভর্তির ক্ষেত্রে লটারিতে শিক্ষার্থীরা ৫টি স্কুলে আবেদন করতে পারবে।’ তিনি বলেন, ‘করোনার প্রাদুর্ভাবের কারণে প্রতিবছরে মতো এবার ভর্তি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হচ্ছে না। এজন্য বিকল্প পদ্ধতি নিয়ে ভেবেছি। অবশেষে তিনটি বিকল্প

প্রথম থেকে নবম শ্রেণিতে ভর্তি পরীক্ষার নতুন সিদ্ধান্ত

ঢাকা : লটারির মাধ্যমে এবারের মাধ্যমিকের ভর্তি করানো হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, প্রতিবারের মতো এবারে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হবে না। এজন্য বিকল্প বিভিন্ন বিষয় ভেবেছি। শেষ পর্যন্ত ৩টি বিকল্প প্রক্রিয়া নিয়ে ভাবা হয়। এক- স্বাভাবিক নিয়মে ভর্তি পরীক্ষা নেয়া। কিন্তু করোনার এই সময়ে এটি করতে চাচ্ছি না। এমসিকিউ পদ্ধতির কথাও চিন্তা করেছি, কিন্তুও তাতেও ঝুঁকি থাকে। দ্বিতীয়- অনলাইনে ভর্তি পরীক্ষা। তবে সব ভর্তিচ্ছুদের পক্ষে এটা সম্ভব হবে না। তৃতীয়-লটারির

দুপুরে শিক্ষামন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন, আসতে পারে যেসব নির্দেশনা

সরকারি-বেসরকারি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের স্কুলে ভর্তির বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। বুধবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলনের বিষয়ে গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তথ্য কর্মকর্তা এম এ খায়ের। তিনি জানান, মাধ্যমিক পর্যায়ে ভর্তির বিষয়ে বুধবার দুপুর ১২টায় শিক্ষামন্ত্রী সংবাদ সম্মেলন করবেন। চলমান মহামারি পরিস্থিতির মধ্যে কিভাবে বা কোন পদ্ধতিতে ভর্তি হবে সেসব নিয়ে মন্ত্রী প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেবেন। শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, ১ম শ্রেণির ভর্তি লটারিতে ও ২য় থেকে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত পরীক্ষার মাধ্যম

প্রাথমিক শিক্ষকদের যে স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে জানুয়ারিতে

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বদলি নিয়ে নানা ধরনের অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ প্রায়ই শোনা যায়। এসব বন্ধে বদলির সকল কার্যক্রম অনলাইনভিত্তিক করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সরকারের এমন সিদ্ধান্তে দেশের প্রাথমিক শিক্ষকরা স্বপ্ন দেখা শুরু করেন। অবশেষ তাদের সেই স্বপ্ন পূরণ হতে যাচ্ছে। জানা যায়, আগামী বছর থেকে ডিজিটাল পদ্ধতিতে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক বদলি কার্যক্রম শুরু করতে চায় প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর (ডিপিই)। এ লক্ষ্যে বদলি কার্যক্রম পরিচালনা করার সফটওয়্যারের কাজ ডিসেম্বরের মধ্যে শেষ করতে সময়

প্রাথমিকে হচ্ছেনা বার্ষিক পরীক্ষা: পরের ক্লাসে উঠবে একই রোল নিয়ে

কোভিড-১৯ সংক্রমণের মুখে চলতি বছর প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতে কোনো বার্ষিক পরীক্ষা নেওয়া হবে না। প্রথম থেকে পঞ্চম শ্রেণির সব শিক্ষার্থী চলতি বছরের একই রোল বা ক্রমিক পরিচিতি নিয়ে আগামী বছর পরের ক্লাসে উঠবে। প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বিভিন্ন গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে প্রাথমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি। তবে বাস্তবতা হলো- সিদ্ধান্ত হয়েছে। শিক্ষার্থীদের মুল্যায়নের

এসএসসিতে পাঁচ বিষয়ে পরীক্ষা, সাপ্তাহিক ছুটি দুই দিন

প্রাক প্রাথমিক থেকে দ্বাদশ শ্রেণি শিক্ষাক্রম পাল্টে যাচ্ছে। বিষয় ও সময় কমিয়ে বইয়ে আনা হচ্ছে পরিবর্তন। প্রাক-প্রাথমিক শিক্ষা এক বছরের পরিবর্তে দুই বছর হবে। দশম শ্রেণির আগে কোনো পাবলিক পরীক্ষা থাকবে না। একজন শিক্ষার্থী বিজ্ঞান মানবিক নাকি ব্যবসায় শিক্ষায় পড়বে, সেটি ঠিক হবে উচ্চ মাধ্যমিকে গিয়ে, যা এখন নবম শ্রেণিতে হয়। পাঠ্যবই, ছুটি, পাবলিক পরীক্ষা ও মূল্যায়ন পদ্ধতিতে বড় ধরনের পরিবর্তনের কাজ শেষ পর্যায়ে নিয়ে এসেছে জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড। নতুন সব উদ্যোগই পর্যায়ক্রমে